From Phoenix to Google Chrome

গুগলের নতুন ক্রোম ব্রাউজার নিয়ে এর মধ্যে অনেক চর্চা হয়ে গেছে। নতুন ব্রাউজার। আমার ফায়ারফক্সের প্রথম ভার্সানের কথা মনে পড়ে গেল। প্রায় ৬ বছর আগের কথা। তখন ফিনিক্স নাম ছিল। আমার বাড়িতে তখন উইন্ডোজ ৯৮। প্রচুর উৎসাহ নিয়ে বাড়িতে ফিনিক্স ব্যবহার করতাম। সে এক ধরণের মুক্তি, ইন্টারনেট এক্সপ্লোরারের হাত থেকে। তারও আগে মোজিলা ১.০ ডাউনলোড করেছিলাম। কিন্তু কোন কারণে খুব বেশী ব্যবহার করতাম না। কিন্তু ২০০২ সালের শেষের দিকে ফিনিক্স আসার পর থেকে আর ফিরে তাকাই নি। তারপর থেকে দায় না পড়লে ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার চালাতাম না। তখন মোজিলা ব্রাউজারও আপডেট করে রাখতাম, মাঝে মাঝে ফিনিক্স টেষ্ট করবার জন্য। এই সব কিছু হয়েছে, ডায়াল-আপ কানেকশান দিয়ে। মাঝে মাঝে ভাবি, কি অসীম ধৈর্য্য ছিল! মোজিলা ব্রাউজার কিন্তু হারিয়ে যায় নি। আজকাল মেজিলা ব্রাউজারকে সি-মাংকি বলে। যাইহোক, তারপর কাবেরী দিয়ে অনেক জল গড়ালো। ফিনিক্স থেকে ফায়ারফক্সে হলো। বাকিটা ইতিহাস। আমার মতে গুগলের নতুন ক্রোম ব্রাউজার ফায়ারফক্সের উত্তরসূরী। কারণ ক্রোম ব্রাউজারও ওপেনসোর্স। যদিও ক্রোম ব্রাউজারের কিছু উপাদান অ্যাপেলে সাফারিতে ব্যবহার হয়।

এখন প্রশ্ন হলো, ফায়ারফক্স না ক্রোম ব্রাউজার? দুটোই থাকুক না। একটা বাগানে শুধু এক রকম ফুল কি ভাল লাগে? এই লেখাটা ক্রোম ব্রাউজারে শুরু করেছিলাম। শেষ করলাম ফায়ারফক্সে।

Advertisements

Bangla (Bengali) with Apple Safari for Windows XP

অনেক চেষ্টা করেও অ্যাপেল সাফারি ৩.১.২তে বাংলা দেখতে পেলাম না। খুব সহজে হিন্দী দেখতে পেলাম। সেটিং নিয়ে কোন লড়াই করতে হলো না।

বেশ অবাক লাগলো। এমনিতে অ্যাপেল সাফারি খুব ভাল ব্রাউসার।

 

                      

 

 

 

This site may harm your computer

স্টার আনন্দ বাংলা চ্যানেল এবং ওয়েবসাইট আমার বেশ ভাল লাগে। কিন্তু স্টার আনন্দ ওয়েবসাইটের ক্ষেত্রে আমাকে ভাল লাগতো বলতে হবে। কারণ গুগল বলছে This site may harm your computer.

গুগলে Star Ananda Live অথবা Star Ananda Live : Bengali News Channel India সার্চ করুন।   স্ক্রীনস্যটগুলো দেখলেই বুঝতে পারবেন, আমি কি বলতে চাইছি।

আবার বলি স্টার আনন্দর কোন ক্ষতি করবার ইচ্ছা আমার নেই। আমার ধারণা Star Ananda Star Ananda Liveএর দায়িত্ব অন্য কোন সংস্থাকে দিয়েছে। তারাই ডোবাচ্ছে।

 

মাইক্রসফটের লাইভ সার্চ ব্যবহার করলে এই বিষয়ে কিছুই জানা যায় না। 

Write WordPress Post in Bangla (Bengali)

ওয়ার্ডপ্রেসে বাংলা লিখতে আমার বেশ অসুবিধে হয়। যেমন‍:

১) ওয়ার্ডপ্রেসের ভিস্যুয়াল এডিটরে ফন্ট সাইজ পাল্টানো যায় না। মাইক্রোসফটের ভ্রিন্দা ফন্ট এমনিতে বেশ ছোট। Wordpress.com Visual Editorভ্রিন্দা ফন্ট দিয়ে ফায়ারফক্সে লিখে, ইন্টারনেট এক্সপ্লোরারে দেখলে, পড়তে বেশ অসুবিধে হয়।

২) ভিস্যুয়াল এডিটরের স্ক্রীন সাইজটা আমার কাছে বড্ড ছোট লাগে। ওপেন অফিসে লিখে ভিস্যুয়াল এডিটরে কপি-পেস্ট করলে, লাইন ব্রেকগুলো চলে যায়। খুব বিরক্ত লাগে। প্যারাগ্রাফ বলে কিছু থাকে না। তখন একমাত্র উপায়, যেখানে প্যারাগ্রাফ চাই, সেখানে <p>&nbsp;</p> ব্যবহার করা।

এই ঝামেলা এড়ানোর জন্য আমি ওয়ার্ডপ্রেসের ভিস্যুয়াল এডিটর ব্যবহার না করে, HTML মোড ব্যবহার করছি। ওয়ার্ডপ্রেসের ভিস্যুয়াল এডিটর disable করে দিয়েছি। আর এডিট করছি FCK Editorএ। ওয়ার্ডপ্রেসের জন্য, HTML সোর্সটা কপি-পেস্ট করি। FCK Editorএ Mazimize the editor size optionটা ব্যবহার করি। সুন্দর কাজ করছে। পোস্টটা পড়ে মনে কাজটা যত কঠিন মনে হচ্ছে, তত কঠিন নয়।

Will Firefox 3 be a problem for Microsoft Office?

আমার ব্লগের টাইটেলের প্রশ্নের উত্তর আমার নিজেরই জানা নেই। সফটওয়্যারের মধ্যে মাইক্রোসফট অফিস হল হাতির মত। বিশাল সফটওয়্যার। নিজের বাণিজ্যিক নিয়মে চলে। কাউকে তোয়াক্কা করতে চায় না। এই হাতির প্রয়োজন আছে। সকলের কাজে লাগে। বিনা পয়সায় পেলে আরো ভাল লাগে।

গুগলের একটা চমৎকার অনলাইন সার্ভিস হল গুগল ডক্‌স – স্প্রেডশীট এবং ডকুমেন্ট লেখার জন্য।খুবই ভাল যদি সবসময় ইন্টারনেট থাকে। আর না থাকলে গুগল ডক্‌স মোটেই ব্যবহারযোগ্য নয়। ফায়ারফক্স ৩ এই পরিস্থিতির একটা পরিবর্তন ঘটাবে। শুধু গুগল ডক্‌স নয় চাইলে ফায়ারফক্স ৩-এ যে কোন ওয়েব ভিত্তিক অ্যাপলিকেশন অফলাইনে চলবে। অ্যাডোবের অ্যাপোলোতেও চাইলে এই সুবিধা থাকবে। চাইলে বলছি কেন? কারণ এই সুবিধে পেতে গেলে বর্তমান ওয়েব অ্যাপলিকেশনগুলোর মধ্যে কাঠামোগত পরিবর্তন আনতে হবে। বর্তমানে যে অবস্থায় আছে, সেই অবস্থায় চলবে না।

এদিকে মাইক্রোসফট অনলাইন জগতে ঠিক কি করবে ভাবতে ভাবতে, গুগলের গেপ বাজারে এসে গেল। ভবিষ্যতে যদি গেপ ইন্টারনেটের সঙ্গে যোগাযোগ ছাড়াই চলতে পারে, তাহলে মাইক্রোসফট অফিসের কি হবে?

লেখা শুরু করেছিলাম মাইক্রোসফট অফিসকে হাতির সঙ্গে তুলনা করে। মনে রাখতে হবে হাতি বসলেও ঘোড়ার চেয়ে লম্বা থাকে। হাতি থাকবে। হয়তো খুব একটা আনন্দে থাকবে না।

Mobile Phone for Watering Crops

২৯ বছর বয়সী অন্ধ্রপ্রদেশের নালগোণ্ডা জেলার কৃষক ভালিশেট্টী নরেন্দ্রর নিজের তিন একর চাষের জমিতে জল দেওয়ার পাম্প চাValishetty Narendra integrated a mobile phone to water pump. When a phone call is made to the phone on the pump, water starts flowing. For details visit http://www.ibnlive.com/videos/32846/water-woes-call-the-pump-now.htmlলু করবার এক অভিনব পন্থা আবিষ্কার করেছেন। অনিয়মিত বিদ্যুতের যোগানের জন্য ওনাকে প্রায় রাত-দুপুরে অসময়ে জল দেওয়ার মোটর পাম্প চালু করবার জন্য ক্ষেতে যেতে হত। কার ভাল লাগে? তার উপর সাপের কামড়ের ভয়! এখন আর যেতে হবে না। ২০০০ টাকা খরচা করে নিজের ব্যবস্থা নিজেই করে নিয়েছেন।

মোটর পাম্পে একটা মোবাইল ফোন লাগিয়েছেন। আর একটা মোবাইল ফোন থেকে ওই পাম্পের মোবাইলে যোগাযগ করলেই মোটর পাম্প চালু হইয়ে যায়। শুনতে সহজ লাগলেও নরেন্দ্রবাবুর মাস ছয়েক লেগেছে ওনার চিন্তাকে বাস্তব রূপ দিতে।

দারুণ কাজ করেছেন ভালিশেট্টী নরেন্দ্র। অভিনন্দন। অনেক কৃষক এই আবিষ্কার থেকে উপকৃত হবেন। আশা রাখি যে শীঘ্রই উনি ওনার এই আবিষ্কারের পেটেন্ট পেয়ে যাবেন।

বিস্তারিত জানতে হলে এই ভিডিওটা দেখুন।